Mountain View
ভোলা বিএনপির টপ নেতাদের মুল্যায়ন হয়নি জাতীয় কমিটিতে


প্রকাশ : আগস্ট ৮, ২০১৬ , ১:৩১ অপরাহ্ণ
প্রথম সংবাদ ডেস্ক

লালমোহন প্রতিনিধি ॥ ভোলার বিএনপির টপ নেতাদের মূল্যায়ন হয়নি জাতীয় কমিটিতে। মেজর হাফিজ, নাজিম উদ্দিন আলম, হাফিজ ইব্রাহিম কেউই আশাতীত পদ পাননি। উপায়ন্তর কেউ কেউ পূর্বের পদও হারিয়ে নিচের অবস্থানে নেমে গেছেন। এ কারণে অনেকটাই হতাশ ভোলার এসব নেতাদের এলাকার দলীয় নেতা-কর্মীরা। শনিবার বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটি প্রকাশ হলে কাঙ্খিত পদে দেখা যায়নি বিএনপির এ ৩ নেতাকে। এদের মধ্যে বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি ও সাবেক মন্ত্রী মেজর (অবঃ) হাফিজ উদ্দিন আহমেদকে স্থায়ী কমিটিতে দেখতে চেয়েছিল তার অনুসারীরা। তাকেও এ পদে না দেখে হতাশ হয়েছেন তার নির্বাচনি এলাকা ভোলা-৩ আসনের লালমোহন ও তজুমুদ্দিন উপজেলা বিএনপি ও অঙ্গ-সহযোগি সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। হাফিজ অনুসারীদের প্রত্যাশা ছিল, বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে দলের সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারণী ফোরাম ‘জাতীয় স্থায়ী কমিটিতে’ ঠাঁই পাবেন প্রভাবশালী এই নেতা। খোদ মেজর হাফিজের প্রত্যাশা-স্বপ্নও ছিল একই। ফেসবুকসহ নানা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কয়েকমাস ধরে আলোচনাও ছিল। কিন্তু শনিবার (৬ আগস্ট) ঘোষিত বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে হাফিজের ঠাঁই হয়েছে আগের পদেই। তিনি এবারও দলের ভাইস চেয়ারম্যান মনোনীত হয়েছেন। তবে ভাইস চেয়ারম্যানের ক্রম অনুসারে মেজর (অবঃ) হাফিজ উদ্দিন আহমেদের অবস্থান চৌদ্দ নম্বরে। গত কমিটিতে ক্রম অনুসারে ভাইস চেয়ারম্যান পদে হাফিজের অবস্থান আরও ভালো স্থানে ছিল। এক-এগারোর প্রেক্ষাপটে পরিস্থিতির কারণে মেজর হাফিজকে নিয়ে নানাভাবে আলোচনা-সমালোচনা চললেও বিএনপির ক্রান্তিকালে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। আওয়ামী লীগ বিরোধী অবস্থানের কারণে প্রথমবারের মতো কারাগারেও গিয়েছেন। বিএনপির স্থায়ী কমিটিতে তার স্থান পাওয়া ছিল সময়ের দাবি। কিন্তু বিএনপির নেতৃত্ব এ বিষয়ে হতাশ করেছেন। ঘোষিত এবারের কমিটিতে রাজনীতিতে মেজর (অবঃ) হাফিজ উদ্দিন আহমেদের চেয়েও জুনিয়র নেতারা তার ওপরে স্থান করে নিয়েছেন। হাফিজের আগে ভাইস চেয়ারম্যানের নামের তালিকায় স্থান পেয়েছেন বিচারপতি টি এইচ খান, এম মোরশেদ খান, হারুন আল রশীদ. শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন. আবদুল¬াহ আল নোমান, সাদেক হোসেন খোকা, মিসেস রাবেয়া চৌধুরী, অধ্যাপক আবদুল মান্নান, আবদুল মান্নান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু ও ব্যারিস্টার শাজাহান ওমর। এরপরেই স্থান পেয়েছে মেজর (অবঃ) হাফিজ উদ্দিন আহমেদের নাম। বিএনপি এবার ৩৭ সদস্যের ভাইস চেয়ারম্যানের পদের মধ্যে চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে এক নম্বর ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে দুই নম্বওে রেখেই তালিকার ক্রম সাজানো হয়েছে। ভোলা-৪ (চরফ্যাশন ও মনপুরা) আসনের সাবেক এমপি নাজিম উদ্দিন আলমও কাঙ্খিত পদ পাননি। বিভিন্ন মাধ্যমে দৌঁড়ঝাপ ও তদবির করেও শেষ পর্যন্ত বিএনপির রাজনীতিতে নিজের পুরনো অবস্থান ধরে রাখতে পারেননি এক সময়ের প্রভাবশালী ছাত্রনেতা নাজিম উদ্দিন আলম। আগের কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক থাকলেও বিএনপির নবগঠিত কেন্দ্রীয় কমিটিতে কোনওমতে ‘সদস্য’ হিসেবে লেখাতে পেরেছেন নিজের নাম। অথচ বিগত আন্দোলন সংগ্রামে নাজিম উদ্দিন আলমের অগ্রনী ভূমিকায় তার এলাকার দলীয় সমর্থকরা আশা করেছিল অন্তত ভালো একটি পদ পাবেন। বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির মোট ৫০২ জনের সদস্য সংখ্যায় ভোলা জেলার কোঠায় সদস্য মনোনীত হয়েছেন নাজিম উদ্দিন আলম। বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির ৫০২ সদস্যের মধ্যে নাজিম উদ্দিন আলমের ক্রমিক নম্বর ১৬৯। ভোলা জেলায় তার পরেই স্থান পেয়েছেন ভোলা-২ আসনের সাবেক এমপি হাফিজ ইব্রাহিম। তাঁর সদস্য ক্রম সংখ্যা ১৭০। পুরনো এই দুই নেতা ছাড়াও এবার ভোলার কোঠায় নতুন হিসেবে বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য হয়েছেন আলমগীর হোসেন। নতুন ক্রম তালিকায় তার স্থান ৩২ নম্বরে। ভোলা-২ আসনের সাবেক এমপি হাফিজ ইব্রাহিমও কাঙ্খিত পদে যেতে পারেননি। বিএনপির কেন্দ্রীয় রাজনীতিতে এবারও নিজের অবস্থান আগের চেয়ে সুসংহত করতে পারলেন না তিনি। বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের আলোচিত বন্ধু গিয়াস উদ্দিন আল মামুনের বড় ভাই হাফিজ ইব্রাহিম এবারও পেয়েছেন বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্যপদ। আগের কমিটিতেও তিনি সদস্য ছিলেন। যদিও তার অনুসারীসহ নির্বাচনি এলাকার নেতা-কর্মীরা প্রত্যাশা করেছিলেন, এবার অন্তত কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটিতে গুরুত্বপূর্ণ সম্পাদকীয় পদ পাবেন প্রভাবশালী এই নেতা। কিন্তু বিএনপির ঘোষিত কমিটিতে হতাশ হয়েছেন হাফিজ ইব্রাহিমের অনুসারীরা। এবারও ভোলা জেলার কোঠায় জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য হয়েছেন তিনি। হাফিজ ইব্রাহিমের অনুসারীসহ ভোলা জেলা বিএনপির একাধিক নেতার দাবি, এক-এগারোর প্রেক্ষাপটে অনেক বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন হাফিজ ইব্রাহিম ও তার পরিবার। তার ছোট ভাই গিয়াস উদ্দিন আল মামুন এখনও কারাবন্দি। হাফিজ ইব্রাহিম নিজেও কারাবন্দি ছিলেন। বিএনপি ও জিয়া পরিবারের জন্য হাফিজ ইব্রাহিম পরিবারের অনেক ত্যাগ থাকলেও এবারও শীর্ষ নেতৃত্ব তাকে সঠিক মূল্যায়ন করেননি।



পুরোন সংবাদ দেখুন

প্রকাশকঃ মোহাম্মাদ রাজীব ।
সম্পাদকঃ মোস্তফা জামান (মিলন)
প্রধান নির্বাহী সম্পাদকঃ এ এম জুয়েল ।
মোবাইলঃ ০১৭১১৯৭৯৮৪৩
prothomsangbadbd@gmail.com

অফিসঃ প্রথম সংবাদ ডট কম
এক্সট্রিম আনলক, ফাতেমা সেন্টার
দোকান নং ৩১৪, ৪র্থ তলা (বিবির পুকুর পশ্চিম পাড়)
৫২৩ সদর রোড, বরিশাল - ৮২০০
বাংলাদেশ ।

© প্রথম সংবাদ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি Design & Developed By: Eng. Zihad Rana
Copy Protected by ENGINEER BD NETWORK