Mountain View
ভেদুরিয়া ফেরিঘাটে বাড়তি ভাড়া আদায়সহ চলছে চাঁদাবাজী ॥ হাতিয়ে নেয়া হচ্ছে লাখ লাখ টাকা


প্রকাশ : আগস্ট ৮, ২০১৬ , ১০:২৮ অপরাহ্ণ
প্রথম সংবাদ ডেস্ক

ভোলা প্রতিনিধি ॥
ভোলা- বরিশাল ও ভোলা-লক্ষীপুর রুটে ফেরি পারাপারে বাড়তি ভাড়া আদায়সহ বিভিন্ন নামে চাঁদাবাজী চলছে। বাসট্রাক লড়ি মালিক সমিতি,শ্রমিক ইউনিয়নসহ বিভিন্ন নামে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নজরদারি না থাকায় চাঁদাবাজ চক্রের দৌরাতœ দিন  দিন বেড়েই চলছে।  আর হয়রানি হচ্ছে সাধারন মানুষ। স্থানীয় সূত্র জানিয়েছে, দক্ষিন পশ্চিমাঞ্চলের সাথে বন্দর নগরি চট্রোগ্রাম অঞ্চলের যোগাযোগের সহজ মাধ্যম হচ্ছে ভোলা। কম সময় লাগার কারনে এ রুট দিয়ে ২১ জেলার প্রতিদিন কয়েক শত বাসট্রাকসহ অন্যন্য যানবাহন চলাচল করে। এ জন্য তাদেরকে পারাপার হতে হয় ভোলার ভেঁদুরিয়া-লাহারহাট ও ভেদুরিয়া মেজু চৌধুরীর হাট ফেরি। ফেরি পারাপার হতে যানবাহন চালকদের বাড়তি টাকা দেওয়াসহ বিভিন্ন খাতে চাঁদা দিতে হয়। চাঁদা না দিলে অসদাচরন আর বিড়ম্বনার স্বীকার হন চালকরা। কোন কোন সময় দিনের পর দিন ঘাটে পড়ে থাকতে হয়। বিড়ম্বনা আর হয়রানিতে থেকে চাঁদা দিতে বাঁধা দিতে হন তারা। ড্রাইভাররা জানান, একটি প্রাইভেট কার ভোলা ভেদুরিয়া-লাহারহাট ফেরিতে পার হতে ৭৮০ টাকার রিসিট দিলে আদায় করা হয় ১১শ টাকা। আবার ৯৮০ টাকার রিসিট দিয়ে আদায় করা হয় ১৫শ টাকা। তা ছাড়াও লাইনের জন্য ৫০ টাকা, টোল পাকিং ১০০ টাকা, শ্রমিক ইউনিয়নের জন্য ২০টাকাসহ বিভিন্ন খাতে তাদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা আদায় করা হয়।  গাড়ি,পন্যবাহি ট্রাক ভেদে ভাড়া ও চাঁদার পরিমান আরো বেড়ে যায়। আর দাবীকৃত চাঁদা না দিয়ে পন্যবাহি গাড়ি চালকদের ভোগান্তির শেষ থাকে না। সরেজমিনে দেখা যায়, ঘাটে বিআইডব্লিউটিসির ভাড়া আদায়েরর একটি তালিকা প্রকাশ্যে প্রর্দশনের   কথা থাকলেও তা ভেদুরিয়াঘাটের কাউন্টারের ভিতরে রাখা হয়েছে। সাধারন মানুষ জানতেই পারছে না কত টাকার ভাড়া কত টাকা বাড়তি নিচ্ছে। চাঁদা ও বাড়তি ভাড়া আদায়ের সাথে জড়িত শ্রমিকরা জানিয়েছে উধর্ক্ষতন ব্যক্তিদের নির্দেশে তারা চাঁদা নিচ্ছেন। তবে বাড়তি ভাড়া আদায়ের সঙ্গে জড়িত বিআইডব্লিউটিসি প্রান্তিক সহকারী জহিরুল ইসলাম, মিজানুর রহমান, সিনিয়র টারর্মিনাল সুপার মোয়াজ্জেম হোসেনসহ সংশ্লিষ্ট ইন চার্জ কেউই কথা বলতে রাজি হয়নি। বরং তারা কাউন্টার বন্ধ করে এলাকা ত্যাগ করে। এ বিষয়ে যাতে সাংবাদিকরা রির্পোট না করে, তা নিয়ে বিভিন্ন মাধ্যমে ম্যানেজের চেষ্টা চালায়। এক পর্যায়ে বিআইডব্লিউটিসি প্রান্তিক সহকারী জহিরুল ইসলাম বলেন, উপর মহলকে ম্যানেজ করেই আমরা চলি। প্রশাসন, পুলিশ আর সাংবাদিক ম্যানেজ করা হয়েছে। তারপরও আপনারা কেন এসব নিয়ে ঝামেলা করছেন। তিনি আরও বলেন, বিআইডব্লিউটিসির চেয়ারম্যানও আমাদের ম্যানেজ করা আছে। সাংবাদিকরা নিউজ করে আমাদের কিছুই করতে পারবে না। আমরা টাকা কামাই করি এবং যায়গামত তেলও দেই। স্থানীয়রা জানায়, প্রতিনিয়িত ঘাটে পুলিশ সদস্যরা ডিউটি করেন। কিন্তু তাদের সামনেই চাদাবাজি চলে। পুলিশের দুই জন সিপাহী কি আর করবে। অপর দিকে ভোলা ট্রাক লড়ি মালিক সমিতির নামে চাঁদা তুলছে আলমগীর। তিনি রুহুল আমিন ও খাজা আনোয়ারের নির্দেশে প্রতি তেলের লড়ি থেকে ২০০ টাকা করে তুলে। আলমগীরের দাবী তাদের সমিতির গাড়ি থেকে তিনি বৈধ চাঁদা তুলেন। অপর দিকে সুমন নামে এক যুবক গাড়ি প্রতি ২০ টাকা করে বীর দর্পে বরিশাল শ্রমিক ইউনিয়নের নামে চাঁদা তুলছে।   না প্রকাশে অনিচ্ছুক ট্রাক মালিক জানান, যদি তাদের ট্রাকে মালামাল বেশী নেয়া হয়  তা হলে ফেরিতে উঠতে গেলে অতিরিক্ত ভাড়া দিতে হয়। অভিযোগ রয়েছে, বিআইডব্লিউটিসির ভোলা ভেদুরিয়া ঘাটের টার্মিনাল সহকারি জহিরুল ইসলাম ভোলায় প্রায় ৯ বছর চাকুরি করছে। তার বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ থাকলেও তাকে কেউ কিছু করতে পারেনা। তিনি ভোলার ভেদুরিয়াঘাট নিয়ন্ত্রণ কর্তা হিসাবে পরিচিত। অন্যদিকে ভোলা থানার ওসি মীর খায়রুল কবির চাঁদাবাজীর কথা স্বীকার করে বলেন, ফেরি ঘাটে ২টি শ্রমিক ইউনিয়নের গ্র“প রয়েছে। চাঁদাবাজীর অভিযোগ পেলে তারা ব্যবস্থা নিবেন।



পুরোন সংবাদ দেখুন

প্রকাশকঃ মোহাম্মাদ রাজীব ।
সম্পাদকঃ মোস্তফা জামান (মিলন)
প্রধান নির্বাহী সম্পাদকঃ এ এম জুয়েল ।
মোবাইলঃ ০১৭১১৯৭৯৮৪৩
prothomsangbadbd@gmail.com

অফিসঃ প্রথম সংবাদ ডট কম
এক্সট্রিম আনলক, ফাতেমা সেন্টার
দোকান নং ৩১৪, ৪র্থ তলা (বিবির পুকুর পশ্চিম পাড়)
৫২৩ সদর রোড, বরিশাল - ৮২০০
বাংলাদেশ ।

© প্রথম সংবাদ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি Design & Developed By: Eng. Zihad Rana
Copy Protected by ENGINEER BD NETWORK