Mountain View
এই বাংলাদেশ আমরা চাইনি : তোফায়েল


প্রকাশ : অক্টোবর ৯, ২০১৬ , ১:১১ অপরাহ্ণ
প্রথম সংবাদ ডেস্ক

সিলেটের মেয়ে খাদিজা হাসপাতালের বিছানায় এখন মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করছে। এই বাংলাদেশ আমরা চাইনি। এই হিংসা আমাদের দেশের মানুষের স্বাভাবিক প্রবৃত্তি নয়। বাংলাদেশের মানুষ সংস্কৃতিমনষ্ক। এটি একটি অসাম্প্রদায়িক দেশ।’

বাংলাদেশ স্বল্পদৈর্ঘ্য ও প্রামাণ্য চলচ্চিত্র উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠানে শনিবার বিকেলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

চলচ্চিত্র বিষয়ে তিনি বলেন, ‘চলচ্চিত্রের জগতে আমরা বিশ্বের কাতারে নিজেদের স্থান করে নিতে চাই। আমাদের নির্মাতাদের সেই যোগ্যতা রয়েছে, তার সন্দেহ নেই। কেননা আমাদের চলচ্চিত্র নির্মাতাদের মূল প্রেরণা স্বাধীনতার চেতনা ও মূল্যবোধ। দেশকে ভালোবেসে, হৃদয়ে ধারণ করে কোন কাজ করলে, তা সফলতার শীর্ষে উঠবে।’

একাডেমির জাতীয় চিত্রশালা মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এই আয়োজনে একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন চলচ্চিত্র নির্মাতা সৈয়দ সালাহউদ্দিন জাকি, প্রাবন্ধিক ও গবেষক মফিদুল হক, ফেডারেশন অব ফিল্ম সোসাইটিজ অব বাংলাদেশের সভাপতি স্থপতি লায়লুন নাহার স্বেমি ও চলচ্চিত্র গবেষক ফাহমিদুল হক।

সারাদেশের শিল্পকলা একাডেমিতে একযোগে গত ২ অক্টোবর থেকে শুরু হয় এই উৎসব। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি আয়োজিত সপ্তাহব্যাপী এ উৎসবে ১৯৭১ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত নির্মিত স্বল্পদৈর্ঘ্য ও প্রামাণ্য চলচ্চিত্র নিয়ে সাজানো হয় এ আয়োজন। পুরো উৎসবটি উৎসর্গ করা হয় সদ্যপ্রয়াত বহুমাত্রিক লেখক সৈয়দ শামসুল হককে।

সমাপনী অনুষ্ঠানে স্বল্পদৈর্ঘ্য ও প্রামাণ্য চলচ্চিত্র উভয় বিভাগে শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র, শ্রেষ্ঠ নির্মাতা ও বিশেষ জুরি বিভাগে দেওয়া হয় পুরস্কার। স্বল্পদৈর্ঘ্য বিভাগে শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র নির্বাচিত হয়েছে মো. আবিদ মল্লিকের ‘পথ’। এ বিভাগে ‘দি সুজ’ ছবির জন্য শ্রেষ্ঠ নির্মাতা নির্বাচিত হয়েছেন সাদাত হোসাইন এবং বিশেষ জুরি পুরস্কার পেয়েছে মামুনুর রশীদের ‘মাটির পাখি’। প্রামাণ্যচিত্র বিভাগে শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র নির্বাচিত হয়েছে মকবুল চৌধুরীর ‘নট পেনি নট এ গান’। এ বিভাগে ‘বিষকাঁটা’ ছবির জন্য শ্রেষ্ঠ নির্মাতা নির্বাচিত হয়েছেন ফারজানা ববি এবং ‘যে গল্পের শেষ নেই’ ছবির জন্য বিশেষ জুরি পুরস্কার পেয়েছেন ফৌজিয়া খান। উভয় বিভাগে শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্রের জন্য এক লাখ টাকা করে দুজনকে এবং দুই শ্রেষ্ঠ নির্মাতাকে ৫০ হাজার করে টাকা সম্মানী দেওয়া হয়। বিশেষ জুরি পুরস্কারপ্রাপ্ত নির্মাতাকে দেওয়া হয় সম্মাননা স্মারক ও সনদপত্র। এছাড়া উৎসবে অংশগ্রহণকারী সকল নির্মাতাকে দেওয়া হয় সনদপত্র।

এ উৎসবে ৩৫টি স্বল্পদৈর্ঘ্য এবং ২৯টি প্রামাণ্য চলচ্চিত্র প্রদর্শনীর জন্য নির্বাচন করা হয়। এছাড়াও বিভিন্ন সময়ে নির্মিত উল্লেখ্যযোগ্য চলচ্চিত্র থেকে ১১টি প্রামাণ্য চলচ্চিত্র এবং ৯টি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্বাচন করা হয়। সব মিলিয়ে ৮৪টি চলচ্চিত্র এ উৎসবে প্রদর্শিত হয়। এ উৎসব আয়োজনে সহযোগিতা করেছে ফেডারেশন অব ফিল্ম সোসাইটিজ অব বাংলাদেশ, শর্ট ফিল্ম ফোরাম ও প্রামাণ্যচিত্র পর্ষদ।



পুরোন সংবাদ দেখুন

সর্বাধিক পঠিত

প্রকাশকঃ মোহাম্মাদ রাজীব ।
সম্পাদকঃ মোস্তফা জামান (মিলন)
প্রধান নির্বাহী সম্পাদকঃ এ এম জুয়েল ।
মোবাইলঃ ০১৭১১৯৭৯৮৪৩
prothomsangbadbd@gmail.com

অফিসঃ প্রথম সংবাদ ডট কম
এক্সট্রিম আনলক, ফাতেমা সেন্টার
দোকান নং ৩১৪, ৪র্থ তলা (বিবির পুকুর পশ্চিম পাড়)
৫২৩ সদর রোড, বরিশাল - ৮২০০
বাংলাদেশ ।

© প্রথম সংবাদ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি Design & Developed By: Eng. Zihad Rana
Copy Protected by ENGINEER BD NETWORK