Mountain View
মঠবাড়িয়ায় বাছাই কমিটির বিরুদ্ধে অমুক্তিযোদ্ধাদের তালিকাভূক্ত করার অভিযোগ


প্রকাশ : জুন ৩, ২০১৭ , ৮:৩৪ অপরাহ্ণ
প্রথম সংবাদ ডেস্ক

মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি
পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাছাইয়ে দুর্নীতি ও অমুক্তিযোদ্ধাদের তালিকাভূক্ত করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে যাছাই-বাছাই কমিটির বিরুদ্ধে। শনিবার মঠবাড়িয়া প্রেসক্লাবে বিক্ষুব্ধ মুক্তিযোদ্ধারা সংবাদ সম্মেলন করে এ অভিযোগ আনেন। মুক্তিযুদ্ধে সুন্দরবন অঞ্চলের সাব সেক্টররের ইয়ং কমান্ডিং অফিসার মুক্তিযোদ্ধা মুজিবুল হক হক মজনু সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন। এ সময় সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা সাদিকুর রহমান, মুক্তিযুদ্ধে আমলানি যুব প্রশিক্ষণ ক্যাম্পের মটিভেটর মোস্তফা শাহ আলম দুলাল, সদর ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো. জাহাঙ্গীর হোসেন, সাবেক সহকারী কমান্ডার আব্দুল হালিম জমাদ্দার, সহকারী কমান্ডার ইয়াকুব আলী হাওলাদার ও তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মো. হাবিবুর রহমানসহ মুক্তিযোদ্ধারা উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়,  মঠবাড়িয়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার মো. বাচ্চু মিয়া আকন একজন বিতর্কিত মুক্তিযোদ্ধা। তাকে মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাছাই কমিটির সভাপতি করা হয়েছে। সে ছাড়াও  যাচাই বাছাই কমিটিতে আরও অমুক্তিযোদ্ধা অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে। এ কমিটি বিপুল পরিমান অর্থের বিনিময় প্রায় ৩০০ অমুক্তিযোদ্ধাদের তালিকাভূক্ত করে মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে দাবি করা হয় মঠবাড়িয়ায় ৬১০ জন ভাতাধারী মুক্তিযোদ্ধা রয়েছে । যাদের মধ্যে ২৫০/৩০০ মুক্তিযোদ্ধা ভূয়া। প্রকৃত পক্ষে মঠবাড়িয়ায় ২০০ থেকে ২২৫ জনের বেশী মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন না। নতুন করে যাচাই বাছাই করে আরও ২৯৬ জনের ভূয়া তালিকাভূক্ত করা হয়েছে। এ অমুক্তিযোদ্ধাদের নিকট হতে বর্তমান যাচাই বাছাই কমিটি প্রায় দুই কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে আরও অভিযোগ করা হয়, এ তালিকায় স্বাধীনতা বিরোধি পরিবারের সন্তানদেরও টাকার বিনিমিয়ে নতুন তালিকায় অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে। মঠবাড়িয়ার ১১ ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় সর্বসাকুল্যে নতুন তালিয় ৪০/৫০জন মুক্তিযোদ্ধা থাকতে পারেন । তাদের অনেকে টাকা দিতে না পারায় তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন। যারা টাকা দিতে পেরেছেন তারাই নতুন তালিকায় অন্তর্ভূক্ত হতে পেরেছেন। এর আগের তালিকা হতে ১৩২জন মুক্তিযোদ্ধাকে নুতন করে বাচাই কমিটির সামনে হাজির হতে মন্ত্রণালয় হতে নির্দেশনা দেওয়া হলেও তাঁেদর কাছ থেকে বাছাই কমিটি অর্থের বিনিমিয়ে তাালিকা করে মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছেন। স্থানীয় তুষখালী গ্রামের হাবিবুর রহমান যুদ্ধাপরাধির দুটি মামলায় ৬ ও ৮ নম্বর আসামী তিনি তালিকাভূক্ত হিসেবে ভাতা গ্রহণ করছেন। প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের আপত্তি থাকা সত্বেও বর্তমান মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আর্থিক সুবিধা নিয়ে এ বিষয়ে কোন রেজুলেশন মন্ত্রণালয়ে পাঠাননি। সংবাদ সম্মেলনে বিক্ষুব্দ মুক্তিযোদ্ধারা বর্তমান অমুক্তিযোদ্ধাদের সমন্বয়ে গঠিত যাচাই বাছাই কমিটি বাতিল করে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের সমন্বয়ে বাছাই কমিটি গঠন করার দাবি জানান। সেই সাথে বর্তমান বিতর্কিত মুক্তিযেদ্ধাদের তালিকা বাতিলে দাবি জানানো হয়। অন্যথায় মঠবাড়িয়ার প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধারা কঠোর আন্দোলন কর্মসূচি গ্রহণ করবে ।



পুরোন সংবাদ দেখুন

প্রকাশকঃ মোহাম্মাদ রাজীব ।
সম্পাদকঃ মোস্তফা জামান (মিলন)
প্রধান নির্বাহী সম্পাদকঃ এ এম জুয়েল ।
মোবাইলঃ ০১৭১১৯৭৯৮৪৩
prothomsangbadbd@gmail.com

অফিসঃ প্রথম সংবাদ ডট কম
এক্সট্রিম আনলক, ফাতেমা সেন্টার
দোকান নং ৩১৪, ৪র্থ তলা (বিবির পুকুর পশ্চিম পাড়)
৫২৩ সদর রোড, বরিশাল - ৮২০০
বাংলাদেশ ।

© প্রথম সংবাদ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি Design & Developed By: Eng. Zihad Rana
Copy Protected by ENGINEER BD NETWORK